অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

আপনাদের মতামত - ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৩
 
মুজাদ্দিদে আ’যম সাইয়্যিদুনা ইমাম রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার মকবুল মুনাজাত শরীফ উনার বেমেছাল রূহানীয়ত সমৃদ্ধ রোব মুবারক উনার ফলেই খোদায়ী গযবে পর্যুদস্ত বিশ্বের সকল কাফির-মুশরিকদের দেশ

বিশ্বের সকল কাফির-মুশরিক তথা ইহুদী-নাছারা-মজুসী-মুশরিক, যবন, ম্লেচ্ছ, অস্পৃশ্য সম্প্রদায় সবাই একজোট হয়ে পৃথিবীর আনাচে-কানাচে, অলিতে-গলিতে মুসলমানদের উপর সন্ত্রাসী হামলা চালিয়ে নির্মমভাবে অবর্ণনীয় যুলুম নির্যাতন করছে, তাঁদেরকে নির্বিচারে শহীদ করছে, মুসলমানদের দেশে সৈন্য পাঠিয়ে অবৈধভাবে মুসলমানদের সম্পদ লুণ্ঠন করছে, মুসলিম মহিলাদের সম্ভ্রমহরণ করছে, সন্ত্রাসী অপবাদ দিয়ে হেয় প্রতিপন্ন করতে চাচ্ছে। পাশাপাশি ফরয-ওয়াজিব-সুন্নতে মুয়াক্কাদা তথা শরীয়ত পালনে বাধা প্রদান করছে। এমনকি এই কাফির-মুশরিক তথা ইহুদী-নাছারা-মজুসীরা তাদের টিভি চ্যানেলে অনুষ্ঠান করে, ইন্টারনেট-ফেসবুক-ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ব্যঙ্গচিত্র অঙ্কন করে হযরত নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, হযরত রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার মানহানি করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে এবং আন্তর্জাতিকভাবে পবিত্র কুরআন শরীফ পোড়ানো দিবস পালন করেছে। এরপরও সারা বিশ্বের প্রায় সোয়া ৩০০ কোটি মুসলমান চুপ থাকলেও যামানার একমাত্র ইমাম ও মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম, খলীফাতুল্লাহ, খলীফাতু রসূলিল্লাহ, ইমামুল আইম্মাহ, মুহইস সুন্নাহ, কুতুবুল আলম, জামিউল আলক্বাব, নূরে মুকাররম, হাবীবুল্লাহ, আওলাদে রসূল সাইয়্যিদুনা ইমাম মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম তিনি সর্বকালের সর্বযুগের সর্বশ্রেষ্ঠ, বেমেছাল রূহানীয়ত সমৃদ্ধ মকবুল মুবারক মুনাজাত শরীফ উনার মাধ্যমে বিশ্বের সকল কাফির-মুশরিকদের দেশগুলোর বিরুদ্ধে বদদোয়া ও বেমেছাল রোব মুবারক প্রকাশ করলেন। যার কারণে উনার বেমেছাল রোব মুবারক উনার ফলেই এখন খোদায়ী গযবে পর্যুদস্ত হয়ে নিস্তানাবুদ তথা অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাচ্ছে একে একে বিশ্বের সকল কাফির-মুশরিকদের দেশগুলো।

(ধারাবাহিক)

বেশি বেশি করে প্রার্থনার ব্যবস্থা করুন!
মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কুরআন শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, প্রত্যেক জাতির এক নির্দিষ্ট কাল আছে। যখন তাদের নির্দিষ্ট সময় আসবে তখন তারা এক মুহূর্তকালও দেরি বা তাড়াতাড়ি করতে পারবে না। কাফির-মুশরিকরা মানবাধিকারের বড় বড় বুলি আওড়ায়। অথচ মুসলমানদের সম্পদ দখল, দেশ দখল আর জাতিগত বিদ্বেষের কারণে যে যুলুম-নির্যাতন করেছে, করছে তা কোনো মানবিক কাজ নয়। এদের দিন ফুরিয়ে এসেছে; এখন শুধু আযাব-গযবে নিশ্চিহ্ন হবার পালা। আর তাই যালিম ও সন্ত্রাসী প্রেসিডেন্ট ওবামাকে সতর্ক করে মার্কিন কৃষি সচিব বলে যে, “দুর্যোগের (গযবের) ভয়াবহ অবস্থা থেকে বাঁচতে বেশি বেশি করে প্রার্থনার ব্যবস্থা করুন।” গত ২৭.০৮.১৪৩৩ হিজরী ইয়াওমুল আরবিয়ায়ি (বুধবার) মার্কিন কৃষি সচিব টম ভিলসেক হোয়াইট হাউসে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে এই ভয়াবহ খোদায়ী গযবরূপী প্রাকৃতিক দুর্যোগ সম্পর্কে বিশেষভাবে সতর্ক করে। টম ভিলসেক বলে যে, “মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ইতিহাসের সবচেয়ে মারাত্মক সময় অতিবাহিত করছে। দাবানল, বন্যা, তুফান, টর্নেডো, তুষারপাত, খরাসহ অসংখ্য প্রাকৃতিক দুর্যোগ রূপী খোদায়ী গযবে তারা চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিশেষ করে কৃষকশ্রেণীর ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ সবচেয়ে মারাত্মক আকার ধারণ করেছে! মাঠের ফসল নষ্ট হয়ে যাওয়ায় খাদ্যমূল্য অবশ্যই অস্বাভাবিক বৃদ্ধি পাচ্ছে। টম ভিলসেক বলে যে, “এখন এর থেকে পরিত্রাণ পেতে আমাদের বৃষ্টির জন্য বেশি বেশি করে প্রার্থনার ব্যবস্থা করতে হবে। যদি আমরা পরিত্রাণ চাই, অবশ্যই তা করতে হবে, অবশ্যই তা করতে হবে।”
উল্লেখ্য, ইতোমধ্যে খোদায়ী গযবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় দেশটির ৫১টি স্টেটের ২৬০০ কাউন্টিকে দুর্যোগগ্রস্ত এলাকা হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। প্রধান শস্যসমূহ ও সয়াবিনের মোট উৎপাদনের ৮০ শতাংশই শুধু খরায় ধ্বংস হয়ে যায়।







For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal