অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

দেশের খবর - ১২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৩
 
এমপিদের শুল্পমুক্ত গাড়ি : ১১২৩ কোটি টাকার রাজস্ব পায়নি দেশ
আইএনবি:

নবম জাতীয় সংসদের ৩১৫ জন এমপির গাড়িতে শুল্ক ছাড় দেয়ায় রাষ্ট্র প্রায় এক হাজার ১২৩ কোটি টাকা বঞ্চিত হয়েছে। এমপিদের গাড়ি আমদানির পেছনে এর আগে শুল্কছাড়ের এত বড় তুঘলতি কান্ডের ঘটনা ঘটেনি। সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ, মন্ত্রিসভার ৩৮ সদস্যসহ ৩১৫ সংসদ সদস্য শুল্কমুক্ত কোটায় গাড়ি এনেছেন। তবে সংসদ সদস্য হিসেবে শুল্কছাড় নিয়ে গাড়ি কেনেননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা খালেদা জিয়া। এই দুইজনের পাশাপাশি বর্তমান এমপিদের মধ্যে ৩৬ জন শুল্কমুক্ত গাড়ির সুবিধা নেননি। এর মধ্যে মন্ত্রিসভার সদস্য রয়েছেন ১৫ জন।
গতকাল সোমবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকারের লিখিত প্রশ্নের প্রেক্ষিতে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিতের জবাবে এ তথ্য পাওয়া গেছে।
বর্তমান জাতীয় সংসদের স্পিকার আবদুল হামিদ অ্যাডভোকেট এমপিদের বিশেষ সুবিধায় সাত কোটি টাকা মূল্যের ল্যান্ড ক্লুজার স্টেশন ওয়াগন ভিএক্স মডেলের বিলাসবহুল গাড়ি আমদানি করেছেন। তিনি ৭৫ লাখ ১৩ হাজার ৫১৯ টাকায় এ গাড়িটি আমদানি করে ছয় কোটি ৩২ লাখ ২৭ হাজার ৮৪৫ টাকা কর সুবিধা নিয়েছেন।
স্পিকারের পাশাপাশি সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী, চীফ হুইপ উপাধ্যক্ষ আব্দুস শহীদ, বিরোধী দলীয় চীফ হুইপ জয়নাল আবদীন ফারুকসহ বর্তমান সরকারের বেশ কয়েকজন মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী এমপিদের বিশেষ সুবিধায় উচ্চ মূল্যের গাড়ি কিনেছেন।
তবে শুল্কমুক্ত সুবিধায় সব চেয়ে বেশি মুল্যের গাড়ি কিনেছেন সরকার দলীয় এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী। তিনি ৭৯ লাখ ২২ হাজার ৬৩৯ টাকা দামে ল্যান্ড ক্লুজার গাড়ি কিনে শুল্ক সুবিধা পেয়েছেন ছয় কোটি ৬৬ লাখ ৫৪ হাজার ১১৩ টাকা। কর সুবিধা না পেলে তাকে এই গাড়ি তাকে সাত কোটি ৪৫ লাখ ৭৬ হাজার ৭৪২ টাকা দিয়ে কিনতে হতো।
অপর দিকে সরকার দলের মহিলা এমপি রুবী রহমানর ২১ লাখ ৪৬ হাজার ২৮২ টাকা মূল্যের গাড়ি আমদানি করে ৪৫ লাখ ৭৯ হাজার ৩০৭ টাকা কর সুবিধা নিয়েছেন। বর্তমান সংসদের এমপিদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধী দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ শুল্ক সুবিধায় ৩৭ জন এখনো পর্যন্ত কোন গাড়ি আমদানি করেননি।
মন্ত্রীর দেয়া তথ্য মতে, বর্তমান জাতীয় সংসদের ৩৫০ জন এমপির মধ্যে শুল্কমুক্ত সুবিধায় ৩১৫ জন এমপি গাড়ি আমদানি করেছেন। এর মধ্যে ২’শর বেশি এমপি টয়োটা ল্যান্ড ক্লুজার, প্রাডো, মিতশুবিসি পাজেরোর মত বিলাসবহুল গাড়ি আমদানি করেছেন। অর্থমন্ত্রী সংসদ সদস্যদের নাম ও গাড়ির মডেল, শুল্কায়িত মূল্য ও শুল্ক করাদির পরিমানের বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরেন। ওই তালিকা থেকে দেখা যায়, স্পীকারসহ ৮৫ জন সংসদ সদস্য পাঁচ কোটি থেকে সাড়ে ছয় কোটি টাকা শুল্কমুক্ত সুবিধা পেয়েছেন। ওই পরিমান শুল্কমুক্ত সুবিধায় ৬২ লাখ থেকে ৭৯ লাখ টাকায় তারা গাড়ি আমাদানি করেছেন। এমপিদের গাড়ি আমদানির জন্য রাষ্ট্র হাজার কোটি টাকার ওপরে শুল্ক বঞ্চিত হয়েছে।
অর্থমন্ত্রীর তালিকা থেকে দেখা যায়, স্পীকারসহ ৮৫ জন সংসদ সদস্য ৫ কোটি থেকে সাড়ে ছয় কোটি টাকা শুল্কমুক্ত সুবিধা পেয়েছেন। ওই পরিমান শুল্কমুক্ত সুবিধায় ৬০ লাখ থেকে ৭৯ লাখ টাকায় তারা গাড়ি আমাদানি করেছেন।
সরকারের মন্ত্রীদের মধ্যে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রী আফসারুল আমীন ৭৫ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে ছয় কোটি ২৮ লাখ, পরিকল্পনা মন্ত্রী একে খন্দকার ২৩ লাখ টাকায় গাড়ি আমদানি করে তিন কোটি টাকা, রেল মন্ত্রী মুজিবুল হক, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী রাজিউদ্দিন আহমেদ রাজু এবং স্বাস্থ্য মন্ত্রী আফ ম রুহুল হক প্রত্যেকে ৭৬ লাখ টাকার গাড়ি কিনে ৭৬ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে কোটি ৩৮ লাখ, পানি সম্পদ মন্ত্রী রমেশ চন্দ্র সেন ৪১ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে দুই কোটি ৪৯ লাখ, শ্রম প্রতিমন্ত্রী মুন্নুজান সুফিয়ান ৫২ লাখ টাকায় গাড় কিনে ৩ কোটি ১৫ লাখ, ডেপুটি স্পিকার শওকত আলী টাকায় গাড়ি কিনে তিন কোটি ১৮ লাখ, স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু ৭১ লাখ টাকায় গাড়ি পাঁচ কোটি ৯২ লাখ, আইন প্রতিমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ৬০ কোটি টাকায় গাড়ি কিনে তিন কোটি ৬০ লাখ, মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শিরীন শারমীন চৌধুরী ৫৬ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে দুই কোটি ৫০ লাখ, যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আহাদ আলী সরকার ৫৭ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে তিন কোটি ৪৩ লাখ, সাংস্কৃতি মন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ ৭০ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে পাঁচ কোটি ৮৭ লাখ, নৌ মন্ত্রী শাহজাহান খান ৪৫ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে দুই কোটি তিন লাখ, বন ও পরিবেশ মন্ত্রী হাছান মাহমুদ ও প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন প্রত্যেকে ৬৪ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে পাঁচ কোটি ৩৭ লাখ, গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী আব্দুল মান্নান খান ৪৪ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে এক কোটি ৯৯ লাখ, শ্রম কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন ৬৪ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে পাঁচ কোটি ৩৬ লাখ, মৎস ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস ৪১ লাখ টাকায় কিনে আড়াই কোটি, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী ৬৫ লাখ টাকায় কিনে পাঁচ কোটি ৬৬ লাখ, দফতরবিহিন মন্ত্রী সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত ৬৩ লাখ টাকায় কিনে পাঁচ কোটি ২৯ লাখ, মোস্তফা ফারুক মুহম্মদ ৩৬ লাখ টাকায় এক কোটি ৫১ লাখ, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী দীপঙ্কর তালুকদার ৬১ লাখ টাকায় কিনে পাঁচ কোটি ১২ লাখ, ভূমি প্রতিমন্ত্রী মুস্তাফিজুর রহমান ফিজার ৩৬ কোটি টাকায় গাড়ি কিনে দুই কোটি ১৭ লাখ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী মহিউদ্দিন খান আলমগীর ৪২ কোটি টাকায় গাড়ী কিনে দুই কোটি ৫৫ লাখ, যোগাযোগ মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ৪৯ লাখ টাকায় গাড়ী কিনে ২ কোটি ৯৫ লাখ টাকা, সংসদ উপ নেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ৬১ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে পাঁচ কোটি ১২ লাখ, চীফ হুইপ আব্দুস শহীদ ৫৮ লাখ টাকার গাড়ি কিনে চার কোটি ৭৮ লাখ, আব্দুল ওয়াহাব ২৬ লাখ টাকার গাড়ি কিনে এক কোটি ১৯ লাখ, মির্জা আজম ৭০ লাখ টাকায় কিনে পাঁচ কোটি ৬৫ লাখ, সাগুফতা ইয়াসমিন ৬১ কোটি টাকায় কিনে পাঁচ কোটি, আ স ম ফিরোজ ৫৯ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে চার কোটি ৯৩ লাখ, মুজিবুল হক ৬৩ লাখ টাকায় কিনে পাঁচ কোটি ২৯ লাখ, বিরোধী দলয় হুইপ জয়নাল আবদীন ফারুক ৫৪ লাখ টাকায় গাড়ি কিনে চার কোটি ৫১ লাখ শুল্ক সুবিধা নিয়েছেন।
প্রশ্নকর্তা শহীদুজ্জামান সরকারও কম দামি গাড়ি কিনেছেন। তার গাড়ির মূল্য ২৩ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। শুল্কমুক্ত সুবিধা পেয়েছেন এক কোটি টাকা। এছাড়াও তুলনামুলক কম শুল্কমুক্ত সুবিধায় কম দামি গাড়ি কেনার তালিকায় রয়েছেন আওয়ামী লীগের ইসরাফিল আলম, এথিন রাখাইন, ইমরান আহমদ, ফরিদা রহমান, জিন্নাতুন নেসা তালুকদার, হায়াতুর রহমান খান বেলাল, খাদিজা খাতুন শেফালী, আব্দুল মজিদ খান, বিএনপির আব্দুল মোমিন তালুকদার, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, জেড আই এম মোস্তাফা আলী, নজরুল ইসলাম মঞ্জু। তাদের আমদানি করা গাড়ির শুল্কমুক্ত মূল্য ২৫ লাখ টাকার কম। শুল্কমুক্ত সুবিধা পেয়েছে এক থেকে সোয়া কোটি টাকা।
মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির চেয়ারপার্সন হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ পাঁচ কোটি টাকা শুল্কমুক্ত গাড়ি কিনেছেন ৭২ লাখ ৬১ হাজার টাকায়। তার স্ত্রী জাতীয় পার্টির রওশন এরশাদ দুই কোটি শুল্কমুক্ত সুবিধা নিয়ে ৪৫ লাখ ৭৩ হাজার টাকার গাড়ি কিনেছেন। এছাড়া জাতীয় পার্টির দুই সংসদ সদস্য এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার ও তার স্ত্রী নাসরিন জাহান রতœা শুল্কমুক্ত সুবিধায় একই দামের দুটি গাড়ি কিনেছেন। তাদের গাড়ির পৃথক মূল্য ৫৯ লাখ ৪৪ হাজার টাকা। শুল্কমুক্ত সুবিধা পেয়েছেন চার কোটি ৯৩ লাখ টাকা।
চারদলীয় জোটের শরিক বিজেপির আন্দালিভ রহমান পাঁচ কোটি ১৭ লাখ টাকা শুল্কমুক্ত সুবিধায় ব্র্যান্ড নিউ টয়োটা ল্যান্ড ক্রুজার স্টেশন ওয়াগন ভিএক্স কিনেছেন ৬০ লাখ ৪৫ হাজার টাকায়। স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ফজলুল আজিম পাঁচ কোটি ৬৭ লাখ ৮৬ হাজার টাকা শুল্কমুক্ত সুবিধায় ৬৮ লাখ ৪৬ হাজার টাকায় গাড়ি আমদানি করেছেন।







For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal