অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...
 

যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আ’ইম্মাহ, মুহইস সুন্নাহ, ক্বাইয়্যুমুয্ যামান, কুতুবুল আলম, হুজ্জাতুল ইসলাম, সুলত্বানুল আউলিয়া ওয়াল মাশায়িখ, ছাহিবু সুলত্বানিন নাছীর,
মাহিউল বিদয়াহ, রসূলে নুমা, গাউছুল আ’যম, সাইয়্যিদুল আউলিয়া, ইমামুল উমাম, সাইয়্যিদুল খুলাফা, আস সাফফাহ, হাবীবুল্লাহ্, আওলাদে রসূল, রাজারবাগ শরীফ-এর মুর্শিদ ক্বিবলাহ
The Daily Al Ihsan
বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে পঠিত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত এর
আক্বীদায় প্রতিষ্ঠিত একমাত্র আন্তর্জাতিক ইসলামী পত্রিকা
Arabic .  বাংলা .  Urdu .  English .  Japanese .  Swedish
১৮ মাহে শাবান শরীফ, ১৪৩৭ হিজরী, ২৭ সানি আ’শির, ১৩৮৩ শামসি
২৬ মে, ২০১৬ ঈসায়ী সন, ১২ জৈষ্ঠ, ১৪২৩ ফসলী সন
ইয়াওমুল খামীস (বৃহস্পতিবার)
al-ihsan al-ihsan al-ihsan
al-ihsan
মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার দোয়ার বরকতে মুসলমানদেরকে জুলুম নির্যাতন করার ফলে জুলুমবাজ কাফিরদের উপর খোদায়ী গজব
  • <font class='SlideCaptionBN'>এখনও অব্যাহত আছে কানাডার দাবানল। </font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>গত সপ্তাহে দাবানলের আয়তন দ্বিগুন বেড়ে হয়েছে প্রায় ১২ লক্ষ একর। </font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>এদিকে দাবানলে সৃষ্টি ভয়াবহ ধোয়ার কারণে বন্ধ হয়ে গেছে অনেক তেলক্ষেত্র। </font>
Al Baiyinaat : e Version Al Ihsan : e Version
সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ উপলক্ষে প্রকাশিত
পোষ্টার, স্ক্রিনসেভার, ওয়ালপেপার সমুহ ডাউনলোড করুন।
বিশ্বের সমস্ত দেশ ও শহর থেকে পঠিত
ইসলামী শরীয়ত সম্মত একমাত্র পত্রিকা
"দৈনিক আল ইহসান"

বিজ্ঞাপনের মুল্য তালিকা
নামাজের সময়সূচী
জেলা : ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকা
ওয়াক্তশুরুশেষ
সাহ্‌রীর শেষ সময়০৩:৪৩
ফজর০৩:৪৮০৫:১০
ইশরাক০৫:৩৪০৭:১১
চাশত্‌০৭:১২১০:৫৫
জাওয়াল১১:৫৬যোহর নামায পড়ার পূর্ব পর্যন্ত
যোহর১১:৫৬০৪:৩৫
আছর০৪:৩৬০৬:২২
মাগরিব০৬:৪৫০৮:০৪
আওয়াবীনবাদ মাগরিব০৮:০৪
ইশা০৮:০৫০৩:৪৩
তাহাজ্জুদ১১:১৪০৩:৪৩
আগামীকাল ফজর০৩:৪৮০৫:১০
আগামীকাল সূর্যোদয়০৫:১১-
আজ সূর্যোদয়০৫:১১-
আজ সূর্যাস্ত০৬:৪০-
সূত্র: গবেষণা কেন্দ্র- মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ, ঢাকা

 
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
RajarbagShareef.net
Radio 'Al-Hikmah'
Special Days in Islam
majlisu-ruiatil-hilal
International Voice Room
Noorun Alaa Noor
Donate for Daily Al Ihsan Shareef Donate for Daily Al Ihsan Shareef


» কোরআন শরীফের তরজমা ও তাফছির(তরজমায়ে মুজাদ্দিদে আজম)
» ফিক্বহুল হাদিস ওয়াল আছার
» আহ্‌লে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আক্বীদা
» মারিফাতুছ ছাহাবা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম
» আউলীয়া-ই-কিরাম রহমতুল্লাহী আলাইহিম
 
» আত-তাক্বউইমুশ শামসি
» ইসলামের বিশেষ দিন সমূহ
» আহ্‌কামু রমাদ্বানাল মুবারক
» আহ্‌কামুয্‌যাকাত
(যাকাতের হুকুম-আহ্‌কাম)
» বিষয় ভিত্তিক বিশেষ প্রবন্ধ
 
» মাসিক আল বাইয়্যিনাত
» ওয়াজ শরীফ
» ক্বাছীদা আনজুমান
» মক্ববুল মুনাজাত শরীফ
» প্রকাশিত কিতাব সমূহ
 
» ফতওয়া বিভাগ
» সুওয়াল জাওয়াব বিভাগ
» মাসের ফজিলত ও প্রাসঙ্গিক আলোচনা
 
» পত্রিকার মূল সংস্করণ
 
» আপনার মতামত পাঠান
» আর্কাইভ থেকে পড়ুন
 
» সুন্নতি সামগ্রী
» কবিতা

 
মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম-উনার ক্বওল শরীফ
মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘যদি তোমরা সত্যবাদী হও, তবে প্রমাণ উপস্থাপন করো।’

নূরে মুজাসসাম হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘কোনো ব্যক্তির মিথ্যাবাদী হওয়ার জন্য এতটুকুই যথেষ্ট যে, সে যা শুনে তাই বলে বা প্রচার করে বেড়ায়।’ অর্থাৎ তাহক্বীক্ব করে না।

পবিত্র সাহরী ও পবিত্র ইফতারি উনাদের সঠিক সময় জানতে ‘গবেষণা কেন্দ্র- মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ’ থেকে প্রকাশিত ক্যালেন্ডারটি সংগ্রহ ও অনুসরণ করুন। যা পূর্ণ তাহক্বীক্ব করে প্রকাশ করা হয়েছে।

বাজারে প্রচলিত ক্যালেন্ডারে উল্লিখিত সাহরী ও ইফতারীর সময়সূচির অধিকাংশই পূর্ণ সঠিক নয়।

স্মরণীয় যে, পবিত্র সাহরী, পবিত্র ইফতার ও পবিত্র নামায উনাদের সময়সূচি প্রকাশ ও প্রচার করার সময় পূর্ণ সাবধানতা অবলম্বন করা ফরয।

কেননা, সামান্য অসাবধানতা ও গাফলতির কারণে কোটি কোটি মুসলমানের ফরয রোযা নষ্ট হয়ে যেতে পারে।
সম্পাদকীয়
সব প্রশংসা মুবারক খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য। যিনি সবকিছু ফায়সালার মালিক। সব পবিত্র ছলাত মুবারক ও সালাম মুবারক সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি। যিনি সবকিছুরই বণ্টনকারী। ১৯৯৫ সালে গোমতী সেতু উদ্বোধনের পর সড়কপথে ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম যেতে সময় লাগতো ৪ ঘণ্টা। যানবাহনের চাপ বাড়তে থাকায় এ পথে যাতায়াতে সময়ও ক্রমে বাড়তে থাকে। ২০০৫ সালে তা বেড়ে দাঁড়ায় ৬ ঘণ্টায়। যানবাহনের চাপ আরো বাড়বে বিধায় সে সময় বিদ্যমান মহাসড়কটি চার লেনে উন্নীতকরণের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। এজন্য ২০০৬ সালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্প গ্রহণ করে সরকার। ২০০৬ সালে সরকার ২১৬৪ কোটি টাকা ব্যয়ে চার লেন প্রকল্পের অনুমোদন করে, যার কাজ ২০১২ সালের জুন মাসে শেষ করার টার্গেট নেয়া হয়েছিল। পরবর্তীতে ২০০৯ সালে এই প্রকল্পে সংশোধন করা হয়। প্রোফাইলে সংশোধন ও রাস্তার নকশা পরিবর্তন করার জন্য খরচ বৃদ্ধি পেয়ে দাঁড়ায় ২৩৮২ কোটি টাকা। পরবর্তীতে ২০১২ সালে জমি অধিগ্রহণ খরচ বৃদ্ধির জন্য প্রকল্পের খরচ ২৮ কোটি টাকা বাড়ার ফলে খরচ বেড়ে দাঁড়ায় ২৪১০ কোটি টাকা। ২০১৩ সালের মার্চে সরকার তৃতীয়বারের মতো প্রকল্পের খরচ বৃদ্ধি করে ৩১৯০ কোটি টাকা। সেই সাথে প্রকল্প শেষ করতে সময় বাড়িয়ে দেয়া হয় ২০১৫ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। এর পর আবার প্রকল্পটিতে ৬২৬ কোটি ৬৪ লাখ টাকা ব্যয় বৃদ্ধি করা হয়েছে। ফলে এর ব্যয় ৩১৯০ কোটি ২৯ লাখ টাকা থেকে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৮১৬ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। একই সঙ্গে মেয়াদও বৃদ্ধি করা হয়েছে। নতুন সংশোধনীর মাধ্যমে প্রকল্পটির কাজ শেষ হবে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাসের মধ্যে। তবে এতে প্রতীক্ষার পরও কাঙ্খিত প্রত্যাশা পূরণ করবে না ঢাকা-চট্টগ্রাম সব সড়ক চার লেন। দৈনিক আল ইহসান শরীফের এক তথ্যানুসন্ধান থেকে জানা গেছে, দৈনিক সর্বোচ্চ ৬০ হাজার যানবাহন চলাচল করতে পারবে ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন মহাসড়কে। প্রকল্পের নকশাও করা হয়েছে সে অনুযায়ী। তবে মহাসড়কটিতে চলাচলকারী যানবাহনের সংখ্যা যে হারে বাড়ছে, তাতে ২০২০ সালেই সক্ষমতা হারাবে ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন। ২০০৬ সালে গাড়ি চলাচলের প্রবৃদ্ধি প্রাক্কলন করা হয় বছরে ৬ শতাংশ। এর ভিত্তিতে বিস্তারিত নকশা প্রণয়ন শেষে ২০১০ সালে প্রকল্পটির কাজ শুরু হয়। প্রকল্প গ্রহণকালে মহাসড়কটিতে যানবাহন চলাচল করতো দৈনিক গড়ে সাড়ে ১৬ হাজার। এর অর্ধেক ছিল ট্রাক ও কাভার্ড ভ্যান। ৬ শতাংশ হারে বৃদ্ধি হিসাবে নিলে ২০২২ সালে মহাসড়কটিতে যানবাহন চলাচল করবে ৪০ হাজার। ২০৩০ সালে তা ৬০ হাজারে পৌঁছার কথা। এটিই মহাসড়কটিতে যানবাহন চলাচলের সর্বোচ্চ সক্ষমতা। কিন্তু সওজের এক সমীক্ষা বলছে, গত ৫ বছরে গড়ে ৮-১০ শতাংশ হারে বেড়েছে গাড়ির সংখ্যা। এতে ২০২০ সালে মহাসড়কটিতে চলাচলকারী যানবাহনের সংখ্যা দাঁড়াবে দৈনিক গড়ে ৬০ হাজার। এ হিসাবে আগামী পাঁচ বছরেই প্রকল্পের সক্ষমতা শেষ হয়ে যাবে। এর মূল কারণ বৈদেশিক বাণিজ্য তথা আমদানি-রফতানি বৃদ্ধি। এতে মহাসড়কে চলাচলকারী ট্রাক, কাভার্ড ভ্যান ও কনটেইনারবাহী ট্রেইলার দ্রুত বাড়ছে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে ২০২০ সালের আগেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সক্ষমতা শেষ হয়ে যাবে। এক্ষেত্রে একমাত্র উপায় এ রুটে এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ করা। তা না হলে চার লেনও আগের অবস্থায় ফিরে যাবে। সমীক্ষা বলছে, ২০৩০ সালে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দৈনিক চলাচলকারী যানবাহনের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াবে প্রায় এক লাখ। এর মধ্যে পণ্যবাহী যানবাহনের সংখ্যাই হবে প্রায় ৭০ হাজার। আর ২০৩৫ সালে এ মহাসড়কে চলবে দৈনিক গড়ে ১ লাখ ১৮ হাজার ও ২০৪০ সালে ১ লাখ ২৯ হাজার যানবাহন। এত সংখ্যক যানবাহন চলাচলের জন্য এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ ছাড়া বিকল্প নেই। প্রসঙ্গত আমরা মনে করি, মহাসড়ক দুই থেকে চার, চার থেকে ছয় বা আট লেনে উন্নীতকরণ কখনোই সমাধান নয়। উপরন্তু এদেশে বিদ্যমান মহাসড়কের পাশে বাজার, শিল্পপ্রতিষ্ঠান ইত্যাদি রয়েছে। দ্রুতগতির যানবাহনকেও চলতে হয় ধীরগতির যানবাহনের পাশাপাশি। এতে কখনোই কাঙ্খিত গতিতে যানবাহন চলাচল করতে পারে না। এজন্য টেকসই সমাধানের পথে যেতে হবে। বিকল্প হিসেবে রেলপথ এবং বিশেষতঃ নৌপথের দ্রুত উন্নত করতে হবে। এতে সড়কপথে যানবাহনের চাপ কমবে। তবে এর পাশাপাশি ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন সড়ক নিয়ে যে দীর্ঘসূত্রিতা ও প্রকল্প ব্যয় বৃদ্ধি হয়েছে, আমরা মনে করি তা প্রকাশ্য জালিয়াতি ও দুর্নীতি হয়েছে। এবং তা এক অর্থে সরকারি পৃষ্ঠপোষকতার দুর্নীতি। কারণ সরকারের সাথে সম্পৃক্ত প্রভাবশালীরাই এ দুর্নীতির বিস্তার ঘটিয়েছে। উল্লেখ্য, প্রায় ১০ বছর সময় এবং প্রায় ৪ হাজার কোটি টাকা ব্যয়ের সুফল দেশবাসী পাবে মাত্র ৪ বছর। এটা মূলত দেশবাসীর সাথে বড় ধরনের প্রতারণা তথা উপহাস। তবে আমরা মনে করি, দেশবাসীর উদাসীনতা, অসচেতনতা এবং আত্মাধিকার সম্পর্কে অজ্ঞতা; সর্বপোরি বিদ্যমান সরকার কাঠামোয় দেশবাসীর গা ছেড়ে দেয়ার কারণেই রাষ্ট্রযন্ত্রের প্রভাবশালীরা প্রকাশ্যে এরূপ প্রতারণা করতে পেরেছে। যা উভয়পক্ষেরই স্বদেশপ্রেমের ঘাটতি প্রকটভাবে প্রতিভাত করে। অথচ মুসলমান হিসেবে বাঁচতে চাইলে স্বদেশপ্রেমের বিকল্প নেই। কারণ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “স্বদেশপ্রেম ঈমানের অঙ্গ।” স্বদেশপ্রেম থাকলে আগামী একশ বছরের জন্য উপযোগী পরিকল্পনায় অনেক কম ব্যয়ের পাশাপাশি অনেক আগেই ঢাকা-চট্টগ্রাম চার লেন সড়ক বাস্তবায়ন করা সম্ভব হতো। দেশবাসী তার সুফল পেতো। মূলত, এসব অনুভূতি, সমঝ ও দায়িত্ববোধ আসে পবিত্র ঈমান ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাদের মূল্যবোধ ও প্রজ্ঞা থেকে তথা দেশের প্রতি মুহব্বতের চেতনা থেকে। সর্বোপরি পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ অনন্তকালব্যাপী পালন করার ইলম ও জজবা থেকে। আর তার জন্য চাই নেক ছোহবত তথা মুবারক ফয়েয, তাওয়াজ্জুহ। যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার নেক ছোহবত মুবারকেই কেবলমাত্র সে মহান ও অমূল্য নিয়ামত হাছিল সম্ভব। আর ইতিহাসে তিনিই সর্বপ্রথম দিচ্ছেন অনন্তকালব্যাপী পবিত্র সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ শরীফ পালন করার মহামহিম নিয়ামত মুবারক। সুবহানাল্লাহ! খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে তা নছীব করুন। (আমীন)
দেশের খবর
রোজার আগেই নিত্যপণ্যের বাজারে আগুন
পর্যাপ্ত মজুতের পরও ভারত থেকে চাল আমদানী, বিপাকে দেশের কৃষক
১৫ দিনের মধ্যে ছোলার দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে -মেয়র
আইএস’র দায় স্বীকার মিথ্যাচার -পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
ধর্মের ব্যাপারে আমাদের অবস্থান পরিষ্কার- বিএনপি ইসরাইলের সাথে সমঝোতা করে ক্ষমতায় যেতে চায় -হানিফ
১৯ যুদ্ধাপরাধীর বিরুদ্ধে আদেশ ১৪ জুলাই
রাজধানীতে ১৩৫টি পেট্রোল বোমাসহ গ্রেপ্তার ২
প্রবৃদ্ধি বাড়লেও বাড়েনি কর্মসংস্থান -সিপিডি
পবিত্র রমযানে পরীক্ষা সকাল ৯টায়
‘ভুল বিচারে’ ১৪ বছর জেলে, ৫০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ
মায়ানমারের সামরিক হেলিকপ্টার বাংলাদেশের আকাশসীমায়
শেষ রক্তবিন্দু দিয়ে স্বাধীনতা রক্ষা করতে হবে -সেনাপ্রধান
তদবিরের অভাবে অনেক নিরাপরাধ জেল খাটছে -অ্যাটর্নি জেনারেল
বাজেটে পেট্রোলিয়াম করপোরেশনের জন্য বরাদ্দ থাকছে না
খালেদার বিরুদ্ধে মামলা দুরভিসন্ধিমূলক -রিজভী
বড়পুকুরিয়া মামলার পূর্ণাঙ্গ রায়: খালেদাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ
২৭ মে থেকে রাজধানীতে ২ দিনের যাকাত মেলা
পার্বত্য সীমান্তে ইয়াবা পাচারকারীদের দৌরাত্ম বেড়েছে
সেনা প্রত্যাহার ঘোষণার প্রতিবাদে- আজ ৩ পার্বত্য জেলার বাঙালী সংগঠনের আহ্বানে হরতাল
রাজস্বের অভাবে ন্যূনতম শিক্ষা স্নাতক হচ্ছে না -অর্থমন্ত্রী
পায়রা বন্দরের নাব্যতা ফেরাতে সমঝোতা স্মারক সই
ব্যবসায় বাড়ছে ভ্যাট আরোপের হার- ব্যবসায়ীদের দিতে হবে অতিরিক্ত ২০ হাজার
বাস ভাড়ার চার্ট বাস্তবতার নিরিখে হয়নি
উর্দুভাষী সংগঠনের অভিযোগ: জমি দখল করতেই কালশীতে বিহারিদের হত্যা
ব্রিটিশ পার্লামেন্টে প্রশ্ন- বাংলাদেশের ওপর ‘নিষেধাজ্ঞা’ জারি হবে কিনা
ক্ষমতা একচেটিয়া করার ব্যবস্থা হচ্ছে -সাকি
প্রশাসন নির্ধারিত সময় শেষ- চাঁপাইনবাবগঞ্জে আম সংগ্রহ শুরু
কুড়িগ্রামে তৈরি হচ্ছে অর্থনৈতিক অঞ্চল
বিভিন্ন স্থানে বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে
কলেজে ভর্তির আবেদনে বায়োমেট্রিক সিম বাধ্যতামূলক
ঢাকা-মানিকগঞ্জ-পাটুরিয়া রুটে ট্রেনের দাবিতে মানববন্ধন
বাংলাদেশের শিল্পখাতে বিপুল পরিমাণে বিনিয়োগে আগ্রহী চীন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ জাপান সফরে যাচ্ছেন
কোস্ট গার্ডে আরো ৪টি নতুন জাহাজ যোগ হচ্ছে
Anjuman-e Al Baiyinaat, Sweden
কবিতা






For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Alaihis Salam
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal