অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...
 

যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আ’ইম্মাহ, মুহইস সুন্নাহ, ক্বাইয়্যুমুয্ যামান, কুতুবুল আলম, হুজ্জাতুল ইসলাম, সুলত্বানুল আউলিয়া ওয়াল মাশায়িখ, ছাহিবু সুলত্বানিন নাছীর,
মাহিউল বিদয়াহ, রসূলে নুমা, গাউছুল আ’যম, সাইয়্যিদুল আউলিয়া, ইমামুল উমাম, সাইয়্যিদুল খুলাফা, আস সাফফাহ, হাবীবুল্লাহ্, আওলাদে রসূল, রাজারবাগ শরীফ-এর মুর্শিদ ক্বিবলাহ
The Daily Al Ihsan
বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে পঠিত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত এর
আক্বীদায় প্রতিষ্ঠিত একমাত্র আন্তর্জাতিক ইসলামী পত্রিকা
Arabic .  বাংলা .  Urdu .  English .  Japanese .  Swedish
৬ মাহে যিলহজ্জ, ১৪৩৫ হিজরী, ৩ খমিছ, ১৩৮২ শামসি
২ অক্টোবর, ২০১৪ ঈসায়ী সন, ১৭ আশ্বিন, ১৪২১ ফসলী সন
ইয়াওমুল খামীস (বৃহস্পতিবার)
al-ihsan al-ihsan al-ihsan
al-ihsan
মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার দোয়ার বরকতে মুসলমানদেরকে জুলুম নির্যাতন করার ফলে জুলুমবাজ কাফিরদের উপর খোদায়ী গজব
  • <font class='SlideCaptionBN'>ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্ত ভারতের আসাম ও মেঘালয় রাজ্য।</font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>সরকারি হিসেবে নিহতের সংখ্যা ৮৮। </font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>তবে স্থানীয়রা জানিয়েছে মৃতের </font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>সংখ্যা আরো অনেক বেশি।</font>
Al Baiyinaat : e Version Al Ihsan : e Version
সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ উপলক্ষে প্রকাশিত
পোষ্টার, স্ক্রিনসেভার, ওয়ালপেপার সমুহ ডাউনলোড করুন।
বিশ্বের সমস্ত দেশ ও শহর থেকে পঠিত
ইসলামী শরীয়ত সম্মত একমাত্র পত্রিকা
"দৈনিক আল ইহসান"

বিজ্ঞাপনের মুল্য তালিকা
নামাজের সময়সূচী
জেলা : ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকা
ওয়াক্তশুরুশেষ
সাহ্‌রীর শেষ সময়০৪:৩১
ফজর০৪:৩৬০৫:৪৮
ইশরাক০৬:১২০৭:২৮
চাশত্‌০৭:২৯১০:৪৯
জাওয়াল১১:৫০যোহর নামায পড়ার পূর্ব পর্যন্ত
যোহর১১:৫০০৪:০৬
আছর০৪:০৭০৫:২৯
মাগরিব০৫:৫২০৭:০১
আওয়াবীনবাদ মাগরিব০৭:০১
ইশা০৭:০২০৪:৩১
তাহাজ্জুদ১১:১১০৪:৩১
আগামীকাল ফজর০৪:৩৬০৫:৪৮
আগামীকাল সূর্যোদয়০৫:৪৯-
আজ সূর্যোদয়০৫:৪৯-
আজ সূর্যাস্ত০৫:৪৭-
সূত্র: গবেষণা কেন্দ্র- মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ, ঢাকা

 
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
RajarbagShareef.net
Radio 'Al-Hikmah'
Special Days in Islam
majlisu-ruiatil-hilal
International Voice Room
Noorun Alaa Noor
Donate for Daily Al Ihsan Shareef Donate for Daily Al Ihsan Shareef


» কোরআন শরীফের তরজমা ও তাফছির(তরজমায়ে মুজাদ্দিদে আজম)
» ফিক্বহুল হাদিস ওয়াল আছার
» আহ্‌লে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আক্বীদা
» মারিফাতুছ ছাহাবা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম
» আউলীয়া-ই-কিরাম রহমতুল্লাহী আলাইহিম
 
» আত-তাক্বউইমুশ শামসি
» ইসলামের বিশেষ দিন সমূহ
» আহ্‌কামু রমাদ্বানাল মুবারক
» আহ্‌কামুয্‌যাকাত
(যাকাতের হুকুম-আহ্‌কাম)
» বিষয় ভিত্তিক বিশেষ প্রবন্ধ
 
» মাসিক আল বাইয়্যিনাত
» ওয়াজ শরীফ
» ক্বাছীদা আনজুমান
» মক্ববুল মুনাজাত শরীফ
» প্রকাশিত কিতাব সমূহ
 
» ফতওয়া বিভাগ
» সুওয়াল জাওয়াব বিভাগ
» মাসের ফজিলত ও প্রাসঙ্গিক আলোচনা
 
» পত্রিকার মূল সংস্করণ
 
» আপনার মতামত পাঠান
» আর্কাইভ থেকে পড়ুন
 
» সুন্নতি সামগ্রী
» কবিতা
» সবুজ বাংলা ব্লগ

 
মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম-উনার ক্বওল শরীফ
মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তোমাদের মধ্যে যারা কাফির-মুশরিক তথা বিধর্মীদের সাথে মিল-মুহব্বত রাখবে, তারা সেসব কাফির-মুশরিক তথা বিধর্মীদের অন্তর্ভুক্ত হবে।’
সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার দৃষ্টিতে কোনো মুসলমান উনাদের জন্যই পূজাকে সমর্থন করা, তাতে শরীক হওয়া ও যাওয়া জায়িয নেই; বরং হারাম ও কুফরীর অন্তর্ভুক্ত।
উল্লেখ্য, দুর্গাপূজার কথা বেদে নেই। তাই ভারতেও দুর্গাপূজা আড়ম্বরের সাথে পালিত হয় না।
স্মরণীয়, যে দুর্গাপূজা ভারতেই জাতীয় ও সার্বজনীন পূজা নয়। তাহলে ৯৭ ভাগ মুসলমান উনাদের দেশে সে পূজাকে জাতীয় ও সার্বজনীন উৎসব কিভাবে বলা যেতে পারে? আর এজন্য জাতীয় ছুটিইবা কিভাবে চাইতে পারে?
তাহলে মুসলমানগণ কি পূজা করবে? নাউযুবিল্লাহ!
মূলত, দুর্গাপূজা হচ্ছে সংখ্যালঘুদের একটা বিতর্কিত ও অংশত শ্রেণীর পূজা মাত্র। আর বাঙালি হিন্দুর দুর্গাপূজা শুরুই হয়েছে ঈসায়ী ষোড়শ শতাব্দী থেকে।
প্রকৃতপক্ষে হিন্দুরা বাংলাদেশে দুর্গাপূজার নামে চরম অশ্লীলতা ছড়াচ্ছে ও এটাকে সার্বজনীন করতে মুসলমান তোষণ চালাচ্ছে।
ইসলামী শিক্ষা
আপনাদের মতামত
সম্পাদকীয়
সমস্ত প্রশংসা মুবারক খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য; যিনি সকল সার্বভৌম ক্ষমতার মালিক। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, নবী আলাইহিমুস সালাম উনাদের নবী, রসূল আলাইহিমুস সালাম উনাদের রসূল, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি অফুরন্ত পবিত্র দুরূদ শরীফ ও সালাম মুবারক।
দেশের প্রতিটি কারা ফটকে লেখা আছে- ‘রাখিবো নিরাপদ, দেখাবো আলোর পথ’। তবে কারা অভ্যন্তরে এ সেøাগানের মিল খুঁজে পাওয়া কঠিন। জনবল সঙ্কট, খাদ্য বিতরণে অনিয়ম, অপ্রতুল চিকিৎসাব্যবস্থা, মাদকদ্রব্য প্রবেশ, বন্দি নির্যাতন, বন্দির কাছে পাঠানো মালপত্র লোপাট ও বিভিন্ন অজুহাতে বন্দিদের কাছ থেকে অর্থ আদায়সহ বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতিতে আকণ্ঠ ডুবে আছে দেশের কারাগারগুলো। অনিয়মকেই এখানে পরিণত করা হয়েছে নিয়মে। অর্থের বিনিময়ে কারাগারগুলোয় প্রবেশ করছে মাদকদ্রব্য, মোবাইলফোনসহ নিষিদ্ধ পণ্য। কারাগারে বসেই মাদক ব্যবসা, খুন-খারাবি, চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কার্যকলাপ নিয়ন্ত্রণ করছে অপরাধীরা। তাদের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছে একশ্রেণীর কারারক্ষী। এই চক্র কারাগারে খাওয়া, থাকা, গোসল করাসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বন্দিদের কাছ থেকে টাকা আদায় করছে। টাকা না দিলে নির্যাতন করা হয় বলেও অভিযোগ রয়েছে।
সূত্র মতে, দেশের ১৩টি কেন্দ্রীয়সহ মোট ৬৮টি কারাগারে বন্দি ধারণক্ষমতা ৩৩ হাজার ৫৭০ জন হলেও রয়েছে ৬৮-৭০ হাজার। কোনো কোনো কারাগারে ৫ গুণ বেশি বন্দি রয়েছেন। বন্দির নিরাপদ আটক নিশ্চিত, কঠোর নিরাপত্তা, শৃঙ্খলা বজায় রাখা, বন্দিদের সঙ্গে মানবিক আচরণ, যথাযথভাবে তাদের বাসস্থান, খাদ্য, চিকিৎসা, আত্মীয়স্বজনসহ আইনজীবীদের সঙ্গে সাক্ষাৎ নিশ্চিত, অপরাধ পুনঃসংঘটনে ঝুঁকি হ্রাস এবং সুনাগরিক হিসেবে সমাজে পুনর্বাসনের নিমিত্তে প্রশিক্ষণ প্রদানের নিয়ম রয়েছে কারাগারগুলোয়। কিন্তু বাস্তবে এ চিত্র দেখা যায় না। কারাগারের অভ্যন্তরীণ বিষয় তুলে ধরে চলতি ২০১৪ সালের জুলাই মাসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রতিবেদন দাখিল করে গোয়েন্দা সংস্থা। ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, কেন্দ্রীয় কারাগারসহ ৩৭টি কারাগারে বসেই আন্ডারওয়ার্ল্ড নিয়ন্ত্রণ করছে অপরাধীরা। টাকার বিনিময়ে তারা কারাগারে বিলাসী জীবনযাপন করছে। অপরাধীদের সহায়তা প্রদান, ঘুষ-দুর্নীতি, বন্দি নির্যাতনসহ বিভিন্ন অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে কারা কর্মকর্তা ও কারারক্ষীরা।
কারাগারের কথা শুনলে অনেকেই আঁতকে উঠে কষ্টের কথা ভেবে। কিন্তু সবার ক্ষেত্রে এ কথা ঠিক নয়। ধনী ও সন্ত্রাসীরা কারাগারে থেকেও বিলাসী জীবনযাপন করে। অপরাধীরা এখানে বসেই নিয়ন্ত্রণ করছে চাঁদাবাজি, খুনসহ আন্ডারওয়ার্ল্ড। সম্প্রতি গাজীপুর জেলার কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কারাগারে অভিযান চালায় অতিরিক্ত কারা মহাপরিদর্শকের নেতৃত্বে একটি দল। অভিযানকালে শীর্ষ সন্ত্রাসী সুইডেন আসলামসহ কয়েক বন্দির সেল থেকে উদ্ধার করা হয় রঙিন টিভি, মোবাইলফোন, সিম ও মেমোরি কার্ড এবং মাদকদ্রব্য। এর আগে রাতে অভিযান চালানো হয় ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে। ওই সময় ৬ নম্বর সেলের কয়েদি শীর্ষ সন্ত্রাসী আরমানসহ কয়েক বন্দির সেল থেকে ১ লাখ ৩৮ হাজার টাকা, মোবাইলফোন সেট, ইয়াবা ট্যাবলেটসহ মাদকদ্রব্য উদ্ধার করা হয়। এর আগে ২০১৪ সালের ২৮ এপ্রিল কাশিমপুর হাই সিকিউরিটি কারাগারে অভিযান চালিয়ে সাভারের রানা প্লাজার মালিক সোহেল রানার সেল থেকে মোবাইলফোন সেট উদ্ধার করা হয়। সে কারাগার থেকে সার্বক্ষণিক মোবাইলফোনে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা ও পরিবারের সঙ্গে কথা বলতো।
যদিও কারাবিধি অনুযায়ী কারাবন্দিদের কারাগারের বাহির থেকে খাদ্য সরবরাহ করা নিষিদ্ধ, তারপরও কতিপয় অসৎ কারা কর্মকর্তা-কর্মচারীর যোগসাজসে অবৈধ অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে তা করা হয়। এমনকি অবৈধ অর্থ প্রদান করলে কারা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ভালো খাবারের ব্যবস্থা করে দেয়। কারাগারগুলোতে চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয় না বললেই চলে। যেটুকু প্রদান করা হয় তা শুধু নামেমাত্র আর প্রাথমিক পর্যায়ের। প্রয়োজনীয় ঔষধের অপর্যাপ্ত সরবরাহ, সার্বক্ষণিক চিকিৎসকের অভাব, কর্তৃপক্ষের অবহেলা ও দুর্নীতি কারাগারের স্বাস্থ্য পরিস্থিতিকে মারাত্মকভাবে অবনতি ঘটিয়েছে। অধিকাংশ অসুস্থ কারাবন্দির চিকিৎসা সেবা পেতে খুব ঝামেলা পোহাতে হলেও বিত্তশালীরা অসুস্থ না হওয়া সত্ত্বেও খুব সহজেই কারা হাসপাতালের ওয়ার্ডে অবস্থান করার সুযোগ পায়।
কারাবিধির ৯৪ ধারা অনুযায়ী প্রত্যেক কারাগারে পুরুষ ও মহিলাদের জন্য পৃথক হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার কথা বলা হলেও বাস্তবে তা দেখা যায় না। যা খুবই উদ্বেগজনক। তাছাড়া সন্তানসম্ভাবা কারাবন্দিদের মাসে দু’বার করে শারীরিক পরীক্ষা করার কথা কারা বিধিতে থাকলেও বাস্তবে তার প্রতিফলন খুব কমই দেখতে পাওয়া যায়।
বিশেষত কারাগারগুলোতে নারী কারাবন্দিরা আরো বেশিমাত্রায় অসুবিধার সম্মুখীন হয়। নারী কারাবন্দিদের জন্য শুধুমাত্র পৃথক সেলের অপর্যাপ্ততায় নয়, পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থারও শোচনীয় অবস্থা লক্ষ্য করা যায়। তাছাড়া, নারী কারাবন্দিসহ মায়েদের সাথে অবস্থানরত শিশুদের স্বাস্থ্য রক্ষার জন্য সঠিক পরিমাণে খাদ্য ও চিকিৎসা সেবার অপ্রতুলতাসহ শিশুদের জন্য বিশেষ কোনো সুবিধাদি এসব কারাগারে একেবারেই নেই।
সারাদেশের প্রায় আড়াই হাজার নারী কারাবন্দির চিকিৎসায় মাত্র একজন নারী ডাক্তার কাজ করছে। বন্দি অনুযায়ী নারী-পুরুষ ভাগ করা থাকলেও সরকারি নিয়মানুযায়ী কারাগারে নারীবন্দিদের চিকিৎসার জন্য আলাদা কোনো নারী ডাক্তার নিয়োগের বিধান নেই। ফলে প্রতিনিয়ত নারীবন্দিদের সুচিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে, যা সরাসরি মৌলিক ও মানবাধিকার লঙ্ঘন।
মূলত, বাংলাদেশের কারাব্যবস্থা শুধু ইসলামিক আবেদন আর আদর্শই নয়; বর্তমান বিশ্ব প্রেক্ষাপটের বিবেচনায় খুবই নিষ্ঠুর, বর্বর, নির্মম ও পৈশাচিক প্রকৃতি। এর প্রকৃত চিত্র একদিকে যেমন সংক্ষেপে দেয়া খুব মুশকিল, তেমনি হৃদয়বান মানুষের পক্ষে যেকোনো একটি ঘটনার তথ্য থেকে পুরো পরিস্থিতিই আঁচ করে নেয়া সম্ভব।
এক্ষেত্রে সরকারের কর্ণকুহরে আওয়াজ না পৌঁছলেও হৃদয়বান মানুষ মাত্রই উচিত, হৃদয়ের টানেই মানবিক কারণেই কারাগারের মানুষদের জন্যও অনুভব করা।
দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমাদের দেশের রাজনীতিক দলের নেতৃবৃন্দ যখনই ক্ষমতার বাইরে থাকে, তখনই তারা কারাগারের অমানবিক ব্যবস্থাপনা দূর করার সাথে গভীর একাত্মতা পোষণ করে। কিন্তু যখনই ক্ষমতায় আরোহণ করে তখনই তা বেমালুম ভুলে যায়।
মূলত, এসব দায়িত্ববোধ আসে সম্মানিত ইসলামী অনুভূতি ও প্রজ্ঞা থেকে। আর তার জন্য চাই নেক ছোহবত মুবারক তথা ফয়েজ ও তাওয়াজ্জুহ মুবারক।
যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম ঢাকা রাজারবাগ শরীফ উনার মামদূহ হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম উনার নেক ছোহবত মুবারক-এ তা প্রাপ্তি সম্ভব। মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদের সবাইকে সে মহান ও অমূল্য নিয়ামত নছীব করুন। (আমীন)
বিশেষ প্রতিবেদন
ভারতের কাছে দেশের স্বার্থ বিলিয়ে দেয়ার নিকৃষ্টতম উদাহরণ রামপালে কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র।
আইন ভেঙ্গে, সংবিধান ভেঙ্গে জনগণকে ধোঁকা দিয়ে তৈরি হচ্ছে রামপাল তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র।
মাত্র ১৫ ভাগ বিনিয়োগ করে ভারত মালিকানা পাবে ৫০ ভাগ।
আর ধ্বংস হবে এদেশের সুন্দরবন।
এদেশের অর্থনীতি।
এ ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র রুখে দেয়ার দায়িত্ব জনগণের (২৫)
নাস্তিক শিক্ষামন্ত্রীর অযোগ্য নেতৃত্ব ও আপাদমস্তক হিন্দু দিয়ে ভরা, ঘুণে ধরা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারণে ভেঙে পড়েছে এদেশের গোটা শিক্ষাব্যবস্থার ভবিষ্যৎ।
প্রথমে ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র দিয়ে পরীক্ষা, তারপর ঢাবির ‘খ’ ইউনিটে ৯১% ফেল, ‘চ’ ইউনিটে ৯৭% ফেল, ঢাবি’র ইংরেজিতে ভর্তি হওয়ার যোগ্য কেবল ২ জন!
এদের কারণে এমন এক প্রজন্ম তৈরি হয়েছে, যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ারই যোগ্য নয়!
সোনালী ব্যাংকের বেহাল দশা ও গার্মেন্টস সেক্টরে স্যাবোটাজের পেছনেও রয়েছে এই হিন্দুদের হাত। বস্তুত, হিন্দুদের জাতিগত ঐতিহ্যই হলো ছুঁচ হয়ে ঢুকে ফাল হয়ে বের হওয়া, তথা ভালোমানুষ সেজে মুসলমানদের প্রতিষ্ঠানগুলোতে ঢুকে সেগুলো ধসিয়ে দেয়া।
তবে শুধু মন্ত্রণালয় বা প্রতিষ্ঠান নয়, হিন্দুদের মূল লক্ষ্য হলো গোটা বাংলাদেশকে স্যাবোটাজ করা, গোটা বাংলাদেশের অবকাঠামোতে ধস আনা। নাউযুবিল্লাহ!
এসব অযোগ্য হিন্দু আর নাস্তিকগুলোকে এদেশের প্রত্যেকটি সেক্টর থেকে বিতাড়িত করতে হবে। হিন্দুদেরকে চাকরিতে নিয়োগ দেয়া যাবে না, তাদেরকে ব্যবসায় অংশীদার করা যাবে না। ব্রিটিশআমলে হিন্দুদের কারণেই বহু বনেদী মুসলিম জমিদার পরিবার সর্বস্বান্ত হয়েছিল।
ফিরে দেখা ইতিহাস
ঘাতক রাজাকার, আল-বাদর মওদুদী জামাতী, দেওবন্দী খারিজী, ওহাবী সালাফীদের দিনলিপি
০১ অক্টোবর ১৯৭১ ঈসায়ী
আল-বাদর প্রধান ছিলো নিজামী, উপপ্রধান মুজাহিদ
রাষ্ট্রক্ষমতা দখলই জেএমবি ওহাবীদের প্রধান খায়েশ-৩
দেশের খবর
লতিফ মন্ত্রিসভা থেকে বাদ -হানিফ
প্রধানমন্ত্রী আজ দেশে ফিরছেন
লতিফের ফাঁসি দাবি এরশাদের
লতিফের গ্রেফতার দাবি ২০ দলের
সউদী আরব পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি
প্রথম বারের মত কন্টেইনারবাহী জাহাজ নির্মাণ শুরু
ঈদের পর গণশুনানি: গ্যাসের দাম দ্বিগুনেরও বেশি বাড়ানোর প্রস্তাব
মেক্সিকো গেলেও পুরস্কার নেয়া হলো না মন্ত্রী থেকে বহিস্কৃত লতিফের
নাস্তিক লতিফ গ্রেফতার না হলে ২৬ অক্টোবর হরতাল
কালোবাজারীদের হাতে জিম্মি লঞ্চ যাত্রীরা
মসলার দাম চড়া
আমরা সবাই মুনাফিকের পরিচয় দিচ্ছি -ড.কামাল
বাংলাদেশের সম্পদে শ্যেনদৃষ্টি পড়েছে -শিল্পমন্ত্রী
৫ জানুয়ারি নির্বাচন হয়নি, হয়েছে প্রতারণা -মান্না
বিদেশিদের কথায় নয়, নিজেদের প্রয়োজনেই কৃষিতে ভর্তুকি -কৃষিমন্ত্রী
সোহরাওয়ার্দী ছাড়া কোথাও সভা-সমাবেশ নয় -ওবায়দুল কাদের
মায়ানমার কারাগারে আটক শতাধিক বাংলাদেশি
উচ্ছেদের প্রতিবাদে সড়ক অবরোধ, গাড়ি ভাঙচুর
রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রীসহ শীর্ষ কর্তারা বিদেশে
হাতিয়ায় অর্ধশতাধিক জেলে অপহৃত
প্রবীণদের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ১০ দফা দাবি
৫০ হাজার বার্মিজ ইয়াবা ও ১ হাজার ভারতীয় ফেনসিডিল উদ্ধার
সিলেটে মুসলমানদের ফাঁসাতে হিন্দুরা নিজেরাই পূজার মূর্তি ভেঙ্গেছে ॥
ঠাকুরগাঁও, পিরোজপুর, কুড়িগ্রাম, বরিশালেও হিন্দুরাই ভেঙ্গেছে পূজার মূর্তি
ফেনীতে ২০ হাজার লিটার ভেজাল সয়াবিন তেল জব্দ
‘লতিফকে দিয়ে দাবার গুটি চালছেন প্রধানমন্ত্রী’
ব্যাংক কর্মকর্তাসহ পাঁচজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড
সোনালী ব্যাংকের তিন কর্মকর্তাকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ
পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে- দৈনিক আল ইহসান শরীফ-এ ১০ দিনের ছুটি ঘোষণা
Anjuman-e Al Baiyinaat, Sweden
বিদেশের খবর
আসাম ও মেঘালয়ে বন্যায় মৃতের সংখ্যা বাড়ছে
জাপানে আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত: ৪৮ লাশ উদ্ধার, বহু নিখোঁজ
কঠিন আর্থিক মন্দায় ইউরোপ
মধ্যপ্রাচ্যে ২,৩০০ মেরিন সেনা মোতায়েন করবে আমেরিকা
ইরাকের কয়েকটি অঞ্চল পুনর্দখলে নিল কুর্দিসরা
মিশরের আদালতে ইখওয়ানের ২০ সদস্যের মৃত্যুদণ্ড অনুমোদন
বাগদাদে গাড়ি বোমা বিস্ফোরণে নিহত ২৫
আফগান সেনাবাহিনীর বাসে হামলা, নিহত ৭
পবিত্র মীলাদ শরীফ ও পবিত্র ক্বিয়াম শরীফ উনাদের সঠিক ও গ্রহণযোগ্য ফায়ছালা (৪০৬)
ফতওয়া বিভাগ : গবেষণা কেন্দ্র- ‘মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ’
পবিত্র হজ্জ উনার বিরুদ্ধে কটূক্তিকারীর উপযুক্ত শাস্তি দেয়া উচিত
ক্ষুধার্ত আমেরিকা!
মুসলমানদের ক্ষতিসাধন করাই অমুসলিমদের প্রধান ধর্ম
কবিতা






For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Alaihis Salam
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal