অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...

al-ihsan.net
বাংলা | English

আর্কাইভ : বিশেষ প্রতিবেদন
   
ফিরে দেখা ইতিহাস : ঘাতক রাজাকার, আল-বাদর মওদুদী জামাতী, দেওবন্দী খারিজী, ওহাবী সালাফীদের দিনলিপি : ২১ অক্টোবর ১৯৭১ ঈসায়ী |  বিস্তারিত...
২৩ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
সন্ত্রাসবাদের আধুনিক ধারা চালু করতেই হিযবুত তাহরীর গঠিত-২ |  বিস্তারিত...
২৩ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
ফিরে দেখা ইতিহাস : ঘাতক রাজাকার, আল-বাদর মওদুদী জামাতী, দেওবন্দী খারিজী, ওহাবী সালাফীদের দিনলিপি : ২০ অক্টোবর ১৯৭১ ঈসায়ী |  বিস্তারিত...
২২ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
হত্যা, গণহত্যা, লুণ্ঠন, অপহরণ, সম্ভ্রমহরণ ও অগ্নিসংযোগের দায়ে অভিযুক্ত
মওদুদীবাদী জামাতের নেতা মুজাহিদ-২ |  বিস্তারিত...
২২ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
সন্ত্রাসবাদের আধুনিক ধারা চালু করতেই হিযবুত তাহরীর গঠিত-১ |  বিস্তারিত...
২২ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
মহান আল্লাহ পাক তিনি পবিত্র কালামুল্লাহ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক করেন, “তোমরা তোমাদের সবচেয়ে বড় শত্রু হিসেবে পাবে প্রথমতঃ ইহুদীদেরকে; অতঃপর মুশরিকদেরকে।”
ইহুদীরা পূর্ব থেকেই দ্বীনদার আলিম সেজে দ্বীনে হানিফ তথা পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার ক্ষতি করতো।
যেমনটি করেছে ব্রিটিশরা তাদের গুপ্তচর হেমপারের মাধ্যমে ইবনে ওহাব নজদীর দ্বারা ওহাবী মতবাদ তৈরি করে।
অপরদিকে ইহুদী মুনাফিক সউদী শাসকগং ১৮০৬ সালেও নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার জিসিম মুবারক স্থানান্তরের অপচেষ্টা করেছিল। নাঊযুবিল্লাহ!
সউদী ইহুদী ওহাবী মুনাফিক শাসক গোষ্ঠীর এ অপতৎপরতা যেমন নতুন নয়; তেমনি মুসলমান আলিম সেজে সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার নামে গুমরাহী ও কুফরী মতবাদ তৈরি করাও নতুন নয়।
কাজেই বর্তমান সউদী ইহুদী ওহাবী মুনাফিক শাসক গোষ্ঠীও যেমন আবারো এ ধরনের চরম বেয়াদবি করতে পারে; তেমনি ইহুদী-খ্রিস্টানরাও তাদের এজেন্টদের মাধ্যমে পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনার নামে নতুনভাবে আরেক ইবনে ওহাব নজদী তৈরি করতে পারে।
জাকির নায়েক নামধারী কাফির নালায়েক এটারই উদাহরণ।
পবিত্র হেজাজ ভূমির শাসক নামধারীদের ইতিহাস এবং সব গুমরাহীমূলক মতবাদ তৈরির ইতিহাস জানা প্রত্যেক মুসলমানের জন্য ফরয।
এবং তাদের বিরুদ্ধে জিহাদের জন্য প্রস্তুত হওয়াও ফরয।
(পঞ্চম পর্ব) |  বিস্তারিত...
২২ অক্টোবর, ২০১৪ | -আল্লামা মুহম্মদ ওয়ালীউর রহমান, ঢাকা।
ফিরে দেখা ইতিহাস : ঘাতক রাজাকার, আল-বাদর মওদুদী জামাতী, দেওবন্দী খারিজী, ওহাবী সালাফীদের দিনলিপি : ১৯ অক্টোবর ১৯৭১ ঈসায়ী |  বিস্তারিত...
২১ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
হত্যা, গণহত্যা, লুণ্ঠন, অপহরণ, সম্ভ্রমহরণ ও অগ্নিসংযোগের দায়ে অভিযুক্ত মওদুদীবাদী জামাতের নেতা মুজাহিদ-১ |  বিস্তারিত...
২১ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
একাত্তরের মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মওদুদীবাদী জামাতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুজাহিদ ওরফে মইজ্যা রাজাকার হত্যা, গণহত্যা, লুণ্ঠন, অপহরণ, সম্ভ্রমহরণ, দেশত্যাগে বাধ্য করা ও অগ্নিসংযোগের দায়ে অভিযুক্ত।
সাংবাদিক সিরাজউদ্দিন হোসেন অপহরণের ঘটনায় আল-বাদরের প্রধান হিসেবে মুজাহিদের বিরুদ্ধে অপহরণের অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে নাখালপাড়ার পুরনো এমপি হোস্টেলে পাকিস্তানী সেনাদের ক্যাম্পে আটক মুক্তিযোদ্ধা বদি, রুমি ও সুরকার আলতাফ মাহমুদকে হত্যার প্ররোচনায় তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে। আন্তর্জাতিক অপরাধ (ট্রাইব্যুনালস) আইন ১৯৭৩-এর ৩ (১), ৩ (২) (এ) (সি) (জি), ৪ (১), ৪ (২) ২০ (২) ধারায় সে অপরাধী।
জামাত নেতা আলী আহসান মুজাহিদ ১৯৭১ সালের সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে নিহত বুদ্ধিজীবী সিরাজুল ইসলামসহ অসংখ্য বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করেছে। ১৬ ডিসেম্বরে দেশ স্বাধীন হওয়ার পরে যেসব বুদ্ধিজীবীদের খোঁজ পাওয়া যায়নি, তাদের লাশ মোহাম্মদপুরের রায়ের বাজার বৈধ্যভূমিতে পাওয়া যায়। তখন আলী আহসান মুজাহিদের নেতৃত্বে অনেক বুদ্ধিজীবীকে হত্যা করা হয়েছে। মুজাহিদ মুক্তিযোদ্ধাদের দুষ্কৃতকারী বলেছে। দুষ্কৃৃতকারীদের নির্মূল করা হবে, তাদের প্রতিফল ভোগ করতে হবেÑ এমন বিবৃতিও দিয়েছে। ১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর থেকে ১৪ ডিসেম্বরের মধ্যে সারাদেশে যে সব ঘটনা ঘটেছে সব ঘটনার অপরাধের জন্য মুজাহিদ-ই দায়ী।
বেপরোয়া হয়ে উঠছে সন্ত্রাসবাদীরা : প্রশিক্ষণ নিচ্ছে দুর্গম পাহাড়ি অঞ্চলে-৫ |  বিস্তারিত...
২১ অক্টোবর, ২০১৪ | আল ইহসান ডেস্ক:
দুর্নীতি বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর অপারগতা প্রকাশ:
সারাদেশে অবাধে চলছে ভুয়া প্রকল্প ও ভুয়া বিলের ছড়াছড়ি
তথা সরকারি-বেসরকারি হাজার রকমের দুর্নীতি (১৫১) |  বিস্তারিত...
২০ অক্টোবর, ২০১৪ | -আল্লামা মুহম্মদ ওয়ালীউর রহমান।
মোট রেকর্ড: ৭৪৯২ | ৭৫০ এরনং পৃষ্ঠা দেখছেন go first go previous go next go last




For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Mudda Jilluhul Aali
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal