অনুগ্রহ করে অপেক্ষা করুন...
 

যামানার লক্ষ্যস্থল ওলীআল্লাহ, যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, ইমামুল আ’ইম্মাহ, মুহইস সুন্নাহ, ক্বাইয়্যুমুয্ যামান, কুতুবুল আলম, হুজ্জাতুল ইসলাম, সুলত্বানুল আউলিয়া ওয়াল মাশায়িখ, ছাহিবু সুলত্বানিন নাছীর,
মাহিউল বিদয়াহ, রসূলে নুমা, গাউছুল আ’যম, সাইয়্যিদুল আউলিয়া, ইমামুল উমাম, সাইয়্যিদুল খুলাফা, আস সাফফাহ, হাবীবুল্লাহ্, আওলাদে রসূল, রাজারবাগ শরীফ-এর মুর্শিদ ক্বিবলাহ
The Daily Al Ihsan
বিশ্বের সমস্ত দেশ থেকে পঠিত আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাত এর
আক্বীদায় প্রতিষ্ঠিত একমাত্র আন্তর্জাতিক ইসলামী পত্রিকা
Arabic .  বাংলা .  Urdu .  English .  Japanese .  Swedish
৬ মাহে যিলক্বদ, ১৪৩৫ হিজরী, ৪ রবি’, ১৩৮২ শামসি
২ সেপ্টেম্বর, ২০১৪ ঈসায়ী সন, ১৮ ভাদ্র, ১৪২১ ফসলী সন
ইয়াওমুছ ছুলাছায়ি (মঙ্গলবার)
al-ihsan al-ihsan al-ihsan
al-ihsan
মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার দোয়ার বরকতে মুসলমানদেরকে জুলুম নির্যাতন করার ফলে জুলুমবাজ কাফিরদের উপর খোদায়ী গজব
  • <font class='SlideCaptionBN'>প্রবল ঝড়, বর্ষণ ও শিলাবৃষ্টির কবলে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নেব্রাস্কা, </font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>আইওয়া, কানসাস ও নিউইয়র্ক এলাকা। </font>
  • <font class='SlideCaptionBN'>এ সময় ঝড়ের কারণে হাজার হাজার বাড়িঘর বিদ্যুৎশূণ্য হয়ে পড়ে।</font>
Al Baiyinaat : e Version Al Ihsan : e Version
সাইয়্যিদুল আ’ইয়াদ উপলক্ষে প্রকাশিত
পোষ্টার, স্ক্রিনসেভার, ওয়ালপেপার সমুহ ডাউনলোড করুন।
বিশ্বের সমস্ত দেশ ও শহর থেকে পঠিত
ইসলামী শরীয়ত সম্মত একমাত্র পত্রিকা
"দৈনিক আল ইহসান"

বিজ্ঞাপনের মুল্য তালিকা
নামাজের সময়সূচী
জেলা : ঢাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকা
ওয়াক্তশুরুশেষ
সাহ্‌রীর শেষ সময়০৪:১৯
ফজর০৪:২৪০৫:৩৮
ইশরাক০৬:০২০৭:২৫
চাশত্‌০৭:২৬১০:৫৮
জাওয়াল১১:৫৯যোহর নামায পড়ার পূর্ব পর্যন্ত
যোহর১১:৫৯০৪:২৯
আছর০৪:৩০০৬:০০
মাগরিব০৬:২৩০৭:৩৪
আওয়াবীনবাদ মাগরিব০৭:৩৪
ইশা০৭:৩৫০৪:১৯
তাহাজ্জুদ১১:২১০৪:১৯
আগামীকাল ফজর০৪:২৪০৫:৩৮
আগামীকাল সূর্যোদয়০৫:৩৯-
আজ সূর্যোদয়০৫:৩৯-
আজ সূর্যাস্ত০৬:১৮-
সূত্র: গবেষণা কেন্দ্র- মুহম্মদিয়া জামিয়া শরীফ, ঢাকা

 
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
Saieedul Aaiyad
RajarbagShareef.net
Radio 'Al-Hikmah'
Special Days in Islam
majlisu-ruiatil-hilal
International Voice Room
Noorun Alaa Noor
Donate for Daily Al Ihsan Shareef Donate for Daily Al Ihsan Shareef


» কোরআন শরীফের তরজমা ও তাফছির(তরজমায়ে মুজাদ্দিদে আজম)
» ফিক্বহুল হাদিস ওয়াল আছার
» আহ্‌লে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আক্বীদা
» মারিফাতুছ ছাহাবা রদ্বিয়াল্লাহু তায়ালা আনহুম
» আউলীয়া-ই-কিরাম রহমতুল্লাহী আলাইহিম
 
» আত-তাক্বউইমুশ শামসি
» ইসলামের বিশেষ দিন সমূহ
» আহ্‌কামু রমাদ্বানাল মুবারক
» আহ্‌কামুয্‌যাকাত
(যাকাতের হুকুম-আহ্‌কাম)
» বিষয় ভিত্তিক বিশেষ প্রবন্ধ
 
» মাসিক আল বাইয়্যিনাত
» ওয়াজ শরীফ
» ক্বাছীদা আনজুমান
» মক্ববুল মুনাজাত শরীফ
» প্রকাশিত কিতাব সমূহ
 
» ফতওয়া বিভাগ
» সুওয়াল জাওয়াব বিভাগ
» মাসের ফজিলত ও প্রাসঙ্গিক আলোচনা
 
» পত্রিকার মূল সংস্করণ
 
» আপনার মতামত পাঠান
» আর্কাইভ থেকে পড়ুন
 
» সুন্নতি সামগ্রী
» কবিতা
» সবুজ বাংলা ব্লগ

 
মুজাদ্দিদে আ’যম হযরত মুর্শিদ ক্বিবলা আলাইহিস সালাম-উনার ক্বওল শরীফ
মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, ‘তোমাদেরকে যা আদেশ মুবারক করা হয়েছে তার উপর ইস্তিক্বামত থাকো।’ সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার নির্দেশ মুবারক হচ্ছে- সামর্থ্যবান প্রত্যেকের পক্ষ থেকেই পবিত্র কুরবানী করতে হবে। পবিত্র কুরবানী না করে পবিত্র কুরবানী উনার পশু বা সমপরিমাণ নগদ টাকা কৃষকদের মাঝে অথবা বন্যা, মহামারি ও ঘূর্ণিঝড় ইত্যাদি দুর্ঘটনায় আক্রান্ত বা দুঃস্থদেরকে দেয়া বা দিতে বলা সুস্পষ্ট নাজায়িয এবং হারাম। পাশাপাশি সম্মানিত ইসলামী শরীয়ত উনার বিধান পরিবর্তন করার কারণে কাজটা হবে কাট্টা কুফরী আর আমলকারী হবে কাট্টা কাফির। কাজেই এরূপ কুফরী বক্তব্য ও হারাম আমল থেকে বিরত থাকা সকলের জন্যই ফরয। অন্যথায় জাহান্নামী হওয়া ব্যতীত কোনো ব্যবস্থাই থাকবে না।
সম্পাদকীয়
সব প্রশংসা মুবারক যিনি খালিক্ব মালিক রব মহান আল্লাহ পাক উনার জন্য। সাইয়্যিদুল মুরসালীন, ইমামুল মুরসালীন, খাতামুন নাবিইয়ীন, নূরে মুজাসসাম, হাবীবুল্লাহ হুযূর পাক ছল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম উনার প্রতি অফুরন্ত ছলাত শরীফ ও সালাম মুবারক।
উল্লেখ্য, গতকাল (১ সেপ্টেম্বর/২০১৪) ‘দৈনিক আল ইহসান’ পত্রিকায় প্রথম লীড হয়েছেÑ “বন্যায় সারাদেশে ৪ জনের প্রাণহানি, পরিস্থিতির অবনতি।”
উল্লেখ্য, দেশের প্রধান নদ-নদীগুলোর পানি গতকালও বেড়েছে। পদ্মা, মেঘনা, যমুনা, তিস্তা, ব্রহ্মপুত্র, ধরলার পানি গতকাল বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়।
বন্যা উপদ্রুত এলাকার দরিদ্র মানুষ অবর্ণনীয় কষ্টে আছে। দৈনিক আয়ের ভিত্তিতে যাদের দিন চলে তারা অর্ধাহারে বা অনাহারে দিন যাপন করছেন। তবে তাদের কষ্টটা সহজে চোখে পড়লেও নিম্ন মধ্যবিত্তদের কষ্টটা প্রকাশ করতে পারে না। জানা গেছে, বন্যাদুর্গত এলাকার মানুষ ব্যাপকভিত্তিক ত্রাণ বিতরণের অপেক্ষায় আছেন। কারণ এ মুহূর্তে যেমন কাজ নেই, তেমনি তাদের সঞ্চয়ও নেই যে তা দিয়ে সংসার চলবে।
এদিকে বন্যার সাথে চলছে নদী ভাঙন। ইতোমধ্যে ৫০ লাখ লোক গৃহহীন ও পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। হাজার হাজার ক্ষেতের ফসলও রোপা আমন পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় কৃষকের মাথায় হাত। পানিবন্দি ও বন্যা কবলিত এলাকায় পানিঘটিত রোগ, ডায়রিয়া, সর্দি-কাশি-জ্বর ব্যাপকভাবে দেখা দিয়েছে। ত্রাণের জন্য ছুটছেন বন্যার্তরা। ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের কোনো লক্ষণ নেই। স্থানীয়ভাবে জেলা প্রশাসন সামান্য সাহায্য দিয়ে যাচ্ছে। বন্যার্তদের চেয়ে ত্রাণের পরিমাণ খুবই নগণ্য। ঘর-বাড়ি বন্যার পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় কোথাও কোথাও মানুষ অনাহার-অর্ধাহারে খোলা আকাশের নিচে বাঁধে স্কুল ঘরে দিনাতিপাত করছেন।
দেশে বন্যা পরিস্থিতি যে আরো খারাপ অবস্থার দিকে যেতে পারে, এখন পর্যন্ত এটাই অনুমিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, পানি বৃদ্ধির কারণে ১৭ জেলার পরিস্থিতি মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়ায় প্রায় হাজার হাজার সরকারি ও বেসরকারি বিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বাঁধের ভাঙন ও প্রবল বেগে বানের পানি ঢুকে পড়ার ঘটনা দেখা দিয়েছে। এই পরিস্থিতি অনুধাবন করে প্রশাসন দ্রুততার সঙ্গে বিশুদ্ধ খাবার পানিসহ প্রয়োজনীয় পরিমাণ ত্রাণসামগ্রী বিতরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করবে এটা কাঙ্খিত হলেও বাস্তবে দুঃখজনকভাবে তা হচ্ছে না। সেই সঙ্গে পানিবন্দি মানুষজনকে উদ্ধার করে নিরাপদ আশ্রয়ে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগও বৃদ্ধি করতে হবে। পর্যাপ্ত মেডিক্যাল টিম দুর্গত এলাকায় পাঠানোর জন্য সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগ আরো বাড়াতে হবে। পানিঘটিত রোগের প্রকোপ যাতে ব্যাপক হতে না পারে, তা-ও নিশ্চিত করতে হবে। পানিবন্দি মানুষজনকে উদ্ধার করে আশ্রয় শিবিরে নিয়ে যাওয়া, বন্যাদুর্গত মানুষকে ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দেয়া, তাদের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করায় স্থানীয় প্রশাসন তথা সরকারকেই সর্বাধিক দায়িত্ব পালন করতে হবে।
বলাবাহুল্য, বন্যা-প্লাবন, নদ-নদী ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধে ভাঙন এদেশে প্রতি বছরের ঘটনা।
বাংলাদেশের অধিকাংশ নদীগুলো ভারতের মধ্যে দিয়ে প্রবাহিত হয়ে এদেশে প্রবেশ করেছে। সেই সব নদীগুলোর পানি বৃদ্ধির সাথে এ দেশের বন্যা পরিস্থিতি খুব ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত। বিশেষ করে আসামের পাহাড়ি ঢলের কারণে আমাদের প্রায় বন্যা পরিস্থিতির মধ্যে পড়তে হয়। মোট ৫৪টি নদ-নদী ভারত হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। যার ৪৮টিতে ভারতে বাঁধ দিয়েছে। এসব বাঁধে শুষ্ক মৌসুমে যেমন পানি আটকে রাখা হয়, তেমনি বর্ষা মৌসুমে পানি ছেড়ে দেয়া হয়। যে কারণে আমাদের দেশে বন্যার সৃষ্টি হয়। পরিস্থিতির এই বাস্তবতা মেনে নিয়ে হাল ছেড়ে দিলে চলবে না। আমরা তা পারি না।
এজন্য নদ-নদীর নৌ-চ্যানেলগুলোর ড্রেজিংয়ের কাজও পঞ্চাশ বা শত বছরের ভবিষ্যৎ ইতি-নেতির বিষয়গুলো সামনে রেখে পরিকল্পিতভাবে হতে হবে। তা না হলে নৌ-চ্যানেলগুলো অতি মাত্রায় সরু হয়ে পড়তে পারে, যা পরবর্তীতে আবার ড্রেজিংয়ের আওতায় আনতে হতে পারে। এজন্য ড্রেজিংয়ের সঙ্গে পানি সংরক্ষণের চ্যানেল ও রিজার্ভারের বিষয়টিকে পর্যায়ক্রমে যুক্ত করা যেতে পারে।
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বন্যা প্রসঙ্গে স্থায়ী সমাধানের জন্য কোনো সরকারেরই পরিকল্পনা ও প্রকল্প থাকে না। বিষয়টি এখানেই শেষ নয়- অত্যন্ত দুঃখজনক হলো, খোদ রাজধানীতে বন্যার প্রকোপ না হলে সরকার বাহাদুর গা করে না। অর্থাৎ পুঁজিপতি ক্ষমতালিপ্সু সরকার ও মিডিয়া কেবলমাত্র রাজধানীর বিত্তবানদের সমস্যাই আমলে নেয়। কিন্তু দেশের প্রত্যন্ত জেলার বানভাসী মানুষরা কত অনাহারে, অভাবে, কষ্টে, পিপাসায়, রোগ-শোকে আক্রান্ত আছে- সেটা মালুম করার অভিরুচি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক ব্যবস্থার সরকারের নেই। এজন্য বানভাসী মানুষের উচিত হারাম গণতন্ত্রের কুফল অনুধাবন করা। মহান আল্লাহ পাক তিনি ইরশাদ মুবারক করেন, “যমীনে এবং পানিতে যত ফিতনা-ফাসাদ সব মানুষের হাতের কামাই।”
প্রসঙ্গত আরো উল্লেখ্য, বন্যা ব্যবস্থাপনায় নানা প্রতিকূলতা বা আবহাওয়াগত বিপর্যয় সাধারণভাবে ব্যবস্থাপনা করতে গেলে তা আমাদের জন্য অচিন্তনীয় ব্যাপার। কিন্তু আমরা খুব সহজেই এসব সমস্যার সমাধান করতে পারি। বিশেষতঃ পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে কেন অতিবৃষ্টি হয়, কেন অনাবৃষ্টি হয়- তা স্পষ্টভাবেই ব্যক্ত করা হয়েছে।
পবিত্র হাদীছ শরীফ উনার মধ্যে ইরশাদ মুবারক হয়েছে, “যখন তোমরা পবিত্র যাকাত ঠিকভাবে দিবে না, তখনই অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি হবে।”
বলাবাহুল্য, একথা বলার জো নেই যে, আমরা ঠিকমত যাকাত দিচ্ছি। সুতরাং মুসলমান হিসেবে একথা মেনে না নেয়ারও গত্যান্তর নেই যে, যাকাত না দেয়ার কারণেই আমাদের দেশে এ অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি হচ্ছে তথা বন্যা ও খরা হচ্ছে।
অতএব, রাষ্ট্রধর্ম সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার দেশ হিসেবে, ৯৭ ভাগ মুসলমান অধ্যুষিত দেশ হিসেবে আমাদের সরকার বাহাদুরের প্রথম কর্তব্য হবে, সম্মানিত দ্বীন ইসলাম উনার মধ্যে বর্ণিত ব্যবস্থায় সব অবস্থার প্রতিকার করা। সেক্ষেত্রে বন্যা ব্যবস্থাপনা অথবা কৃত্রিম বৃষ্টি ব্যবস্থাপনার চেয়ে যাকাত আদায়ে মনোযোগ দিলে একদিকে ইনকাম ট্যাক্সের মতো অনৈসলামিক কাজ থেকে দেশবাসী রক্ষা পেত; দ্বিতীয়তঃ ইনকাম ট্যাক্সের চেয়ে অনেক বেশি অর্থ আহরিত হতো, পাশাপাশি অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি থেকেও দেশবাসী রক্ষা পেত।
মূলত, এসব অনুভূতি ও দায়িত্ববোধ আসে পবিত্র ঈমান ও পবিত্র দ্বীন ইসলাম উনাদের অনুভূতি ও প্রজ্ঞা থেকে। আর তার জন্য চাই নেক ছোহবত তথা মুবারক ফয়েজ, তাওয়াজ্জুহ।
যামানার ইমাম ও মুজতাহিদ, যামানার মুজাদ্দিদ, মুজাদ্দিদে আ’যম আলাইহিস সালাম উনার নেক ছোহবতেই সে মহান ও অমূল্য নিয়ামত হাছিল সম্ভব। মহান আল্লাহ পাক তিনি আমাদেরকে তা নছীব করুন। (আমীন)
বিশেষ প্রতিবেদন
ফিরে দেখা ইতিহাস : ঘাতক রাজাকার, আল-বাদর মওদুদী জামাতী, দেওবন্দী খারিজী, ওহাবী সালাফীদের দিনলিপি : ১ সেপ্টেম্বর ১৯৭১ ঈসায়ী
একাত্তরে হাজার হাজার লোক হত্যার নির্দেশদাতা ছিল বাচ্চু রাজাকার-৪
দেশে ওহাবীপন্থী সন্ত্রাসবাদীদের গোপন তৎপরতা অব্যাহত-১
কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশন- ‘কোয়ান্টাম মেথড’ থেকে উৎসারিত দাবি করলেও তা মানছে না।
কোয়ান্টাম মেথডের নামে চলছে অবৈজ্ঞানিক প্রক্রিয়া ও নিখাদ প্রতারণা।
কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের মাটির ব্যাংক ভুয়া প্রচারণা আর অর্থ আত্মসাতের প্রপ্রাগান্ডা।
মাটির ব্যাংকে দান, ছদকাহ, যাকাত, মান্নত সবই কাট্টা হারাম।
কোয়ান্টাম মেথড ইলমে তাছাউফ তো নয়ই; বরং কাট্টা কুফরী।
কোয়ান্টাম মেথড বিশ্বাস করলে কেউ মুসলমান থাকতে পারে না।
দেশের খবর
তলিয়ে যাচ্ছে গ্রামের পর গ্রাম, ত্রাণের জন্য হাহাকার
‘আইএসের সঙ্গে যোগ দেয়া বা সমর্থন করা হারাম’
দেশে মোবাইল ব্যবহারকারী ১০ কোটি ৬০ লাখ
আ’লীগ যা পায় তাই চেটে খেয়ে ফেলে -তরিকুল
সংবিধান সংশোধনে ১৬ কোটি মানুষের মতামত নেয়া দরকার -ড. কামাল
মিল নেই আদমশুমারি ও ভোটার তালিকার তথ্যে
দুর্যোগময় পরিস্থিতিতেও সরকার উদাসীন -খালেদা
বিএনপি নয়, সঙ্কটে দেশ -ফখরুল
অবশেষে ২৮শ’ ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকের তালিকা করল বিজিএমইএ
পদ্মার ভয়াল রূপ
ভিটেমাটি হারিয়ে তারা সর্বস্বান্ত
আ’লীগ নেতাকর্মী গুম খুনে জড়িতদের বিচার হবে -হাছান মাহমুদ
ঐশীদের বিরুদ্ধে আরও দু’জনের সাক্ষ্যগ্রহণ
যেভাবে চেহারা পাল্টে দিচ্ছে প্রবাসীরা
লক্ষ্মীপুরে ভুয়া ২ মেজর আটক
বিনা দরপত্রে এক ডজন বিদ্যুৎ প্রকল্প
দিনে ২২০ জন মানুষের কিডনি বিকল হয় -নাসিম
বগুড়ায় ৭ মাসে ৬৫ খুন!
মেহেরপুরের গাংনীতে দু’টি বোমা উদ্ধার
বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্র্র সচিব পর্যায়ে বৈঠক শুরু হচ্ছে আজ
সমুদ্র সম্পদকে কাজে লাগাতে হবে -প্রধানমন্ত্রী
সমুদ্রসীমা রায় নিয়ে দারুণ খুশি ভারতীয় বিশেষজ্ঞরা
মুন্সিগঞ্জে লঞ্চ উদ্ধারের ব্যর্থতা প্রশাসনিক নয় -নৌমন্ত্রী
নাটোরে কলা চাষে বিপ্লব
* এবার প্রায় ৩০০ কোটি টাকার কলা উৎপাদনের আশা
আইটিপিইসি’র সদস্যপদ লাভ করলো বাংলাদেশ
মাওয়ায় নবনির্মিত রো রো ফেরিঘাটের ১শ’ ফুট পদ্মায় বিলীন
তারেকের নামে রক্ত ঠাণ্ডা হয়ে যায় -এরশাদ
গুম-খুন করে আন্দোলন ঠেকানো যাবে না -আব্বাস
সোনালী জালে রূপালী ইলিশ
শনিবার ঢাকা আসছে জাপানের প্রধানমন্ত্রী
রেল স্টেশন ও বিমানবন্দর থেকে প্রায় ৬ কেজি সোনা আটক
দশম সংসদের তৃতীয় অধিবেশন ১৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চালানোর সিদ্ধান্ত
রেলের নিরাপত্তা ও সম্পত্তি আইনের খসড়া অনুমোদন
Anjuman-e Al Baiyinaat, Sweden






For the satisfaction of Mamduh Hazrat Murshid Qeebla Alaihis Salam
Site designed & developed by Muhammad Shohel Iqbal